৫টি উপায়ে ইউটিউব থেকে ইনকাম করুন

৫টি উপায়ে ইউটিউব থেকে ইনকাম করুন

হ্যালো বন্ধুরা,

 প্রথমে বলতে হচ্ছে ইউটিউব কি? ইউটিউব হলো ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম। বেশিরভাগ মানুষ ইউটিউব ব্যবহার করে টাইম পাস করার জন্য। কেউ ব্যবহার করে বিনোদনের জন্য। আবার অনেকেই ইউটিউব কে ব্যবহার করে শিক্ষার জন্য। কেউ আবার ইউটিউব ব্যবহার করে নিজের দক্ষতা দেখিয়ে রাতারাতি জনপ্রিয়তা অর্জন করার জন্য। এবং পাশাপাশি ইউটিউব থেকে একটা ভালো মানের ইনকামের জন্য। আবার অনেকেই ইউটিউবের এর মাধ্যমে মার্কেটিং করে ইনকাম করে। আবার অনেকেই ইউটিউব কে ব্যবহার করে লাখ লাখ টাকা ইনকামের জন্য। তো আজকে আমি আপনাদেরকে বলবো। কিভাবে ৫টি উপায় ইউটিউব থেকে ইনকাম করবেন।

গুগল অ্যাডসেন্সের মাধ্যমে ইনকাম।

বন্ধুরা ইউটিউব থেকে ইনকাম করার প্রথম যেই মাধ্যমটি আমি বলবো সেটি হলো গুগল এডসেন্স থেকে এডভার্টাইজিং এর মাধ্যমে।

ইউটিউব থেকে সবচাইতে বেশি টাকা আয়ের মাধ্যম হচ্ছে গুগল এডসেন্স। ইউটিউব হচ্ছে গুগলের একটি প্রতিষ্ঠান। এবং গুগল এডসেন্স ও হচ্ছে গুগলের একটি বড় প্রতিষ্ঠান। ইউটিউব থেকে গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে ইনকাম করার জন্য। একটি ইউটিউব চ্যানেল খুলতে হবে। এবং সেই চ্যানেলটিতে প্রতিনিয়ত আপনাকে নতুন নতুন ভিডিও আপলোড করতে হবে। এবং আপনি আপনার চ্যানেলে অন্য কারো চ্যানেলের ভিডিও আপলোড করতে পারবেন না। অন্য কারো চ্যানেলের ভিডিও আপনার চ্যানেলে আপলোড করলে আপনি কখনই ইউটিউব থেকে ইনকাম করতে পারবেন না। এবং ইউটিউব আপনাকে কখনোই মনিটাইজেশন দেবে না। এবং আপনার চ্যানেল যেকোনো সময় কপিরাইট স্ট্রাইক এর জন্য সাসপেন্ড হতে পারে। ইউটিউব থেকে ইনকাম এর জন্য। আপনাকে ইউটিউব এর কিছু নিয়ম কানুন মেনে ভিডিও আপলোড করতে হবে। এবং যখন আপনার ইউটিউব চ্যানেলে 4000 ঘন্টা ওয়াচ টাইম এবং 1000 সাবস্ক্রাইবার হয়ে যাবে। তখন আপনি আপনার চ্যানেল থেকে মনিটাইজেশন এর জন্য এপ্লাই করবেন। এবং ইউটিউব টিম যখন আপনার ইউটিউব চ্যানেলের মনিটাইজেশন অন করে দেবে। তখন আপনি গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

পণ্য বিক্রি করে ইউটিউব থেকে ইনকাম।

ইউটিউব থেকে টাকা ইনকামের দ্বিতীয় যে মাধ্যমটি বলবো। সেটি হলো নিজের পণ্য ইউটিউবে বিক্রি করে ইনকাম।

মনে করুন,আপনার একটি কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ এর বড় দোকান আছে। সেই দোকান থেকে যেকোনো একটি কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ আপনি ইউটিউব ভিডিওর মাঝে তুলে ধরবেন। এখন সেই কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ এর যেই ভালো এবং খারাপ দিক গুলো রয়েছে সেগুলো আপনি আপনার ভিডিওর মাধ্যমে আপনার ভিউয়ারদের বলবেন। এবং যদি এক কথায়  বলতে চাই তাহলে আপনি কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ টি আপনার ইউটিউব ভিডিওর মাধ্যমে রিভিউ করবেন। 

এবং যদি রিভিউ না করতে পারেন তাহলে আপনি ইউটিউবে অনেক ভিডিও পেয়ে যাবেন যেগুলো দেখে রিভিউ করা শিখে নিতে পারেন।

 ভিডিওর শেষদিকে আপনি আপনার ভিউয়ার্স কে বলে দিবেন যদি আপনারা এ কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ কিনতে চান তাহলে আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। এবং অবশ্যই আপনার ফোন নাম্বার অথবা ওয়েবসাইট আপনার ভিডিও ডিসক্রিপশন বক্সে দিয়ে রাখবেন। 

যেন যে কেউ আপনাদের প্রোডাক্ট কিনতে গেলে আপনাদের সাথে সহজেই কনট্রাক করতে পারে। এবং প্রোডাক্টটি কিনতে পারে।

 এই টিপস টির মাধ্যমে ইউটিউবে নিজের পণ্য বিক্রি করে ইনকাম করতে পারেন। 

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে ইনকাম।

বন্ধুরা প্রথমে বলতে হচ্ছে এফিলিয়েট মার্কেটিং কি। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং হলো কোন কোম্পানির প্রোডাক্ট অন্য কেউ বিক্রি করে দেওয়াকেই এফিলিয়েট মার্কেটিং বলে।

এফিলিয়েট মার্কেটিং অনেক জনপ্রিয়তা পেয়ে গেছে সারা বিশ্বে। মনে করুন কোন প্রোডাক্ট আপনি রিভিউ করছেন আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিওতে। তখন সেই প্রোডাক্টেটির অনলাইন যে এফিলিয়েট লিঙ্ক আছে। সেই লিংকটি আপনার ইউটিউব ভিডিওর ডেসক্রিপশন বক্সে দিতে হবে।

যখন আপনার ভিডিওর ডেসক্রিপশন বক্সের সেই লিংকটিতে ক্লিক করে। সেই প্রোডাক্টটি কেউ কিনবে।  তখন সেই প্রোডাক্টের কোম্পানি আপনাকে প্রোডাক্টটির দাম অনুযায়ী একটি কমিশন আপনার এফিলিয়েট  অ্যাকাউন্টে দিয়ে দেবে। এইভাবে আপনার এফিলিয়েট লিংক থেকে যতজন প্রোডাক্ট কিনবে। ঠিক ততজনের কমিশন সেই প্রডাক্ট কম্পানি আপনার একাউন্টে জমা করে দেবে। এভাবে যে আপনার লিংকে ক্লিক করে একটি প্রোডাক্ট কিনবে সে যদি 30 দিনের মধ্যে আবার অন্য কোন প্রোডাক্ট কিনে তাহলেও সেই প্রোডাক্টের কোম্পানি আপনাকে কমিশন দিয়ে দেবে।

এই ভাবে আপনি ইউটিউব চ্যানেল থেকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে ইনকাম জেনারেট করতে পারেন।

ইউটিউবের পার্টনারশিপ হয়ে ইনকাম করুন।

 বন্ধুরা ইউটিউব থেকে ইনকাম এর চতুর্থ যে মাধ্যম টি বলবো। সেটি হলো ইউটিউবের পার্টনারশিপ। বর্তমান বিশ্বে 15 হাজারেরও বেশি ইউটিউব এর পার্টনার রয়েছে। যারা ইউটিউব এর বিভিন্ন ব্র্যান্ডের উপরে কাজ করে। অথবা  ইউটিউবে যারা কাজ প্রদান করে থাকে তাদেরকে বিভিন্ন বিষয়ের উপর ভিডিও তৈরি করার জন্য হায়ার করে নেওয়া হয়। তাদেরকে ভিডিও মার্কেটার বলা হয়। তাদেরকে যে বিষয়ের উপরে পে করা হবে তারা সেই নির্দিষ্ট বিষয়টি নিয়ে ভিডিও তৈরি করবে। এবং এই ভাবে আপনারা ইউটিউব পার্টনারশিপ থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এবং অনেকেই  ইনকাম করছে। তো বন্ধুরা এভাবে আপনারা ও ইউটিউব এর পার্টনার হয়ে ইউটিউব থেকে ইনকাম করতে পারেন।

 স্পন্সরশীপ থেকে ইনকাম।

 তো বন্ধুরা প্রথমে বলতে হচ্ছে স্পন্সরশীপ কি ? স্পন্সরশীপ হলো। আপনি যখন ইউটিউব চ্যানেলের জন্য ভিডিও তৈরি করবেন। তখন যে কোম্পানি আপনাকে স্পন্সরশিপ দেবে। সেই কোম্পানির একটি প্রোডাক্ট। আপনাকে ইউটিউব ভিডিওর শুরুতে সেই প্রোডাক্ট নিয়ে কিছু ভালো কথা বলতে হবে।  যেন সেই কোম্পানির প্রোডাক্ট টি আপনার ভিউয়ার কিনে। এবং সেই কোম্পানির প্রোডাক্ট টি আপনার কোন ভিউয়ার্স যখন কিনবে। তখন সেই কোম্পানি আপনাকে সেই প্রোডাক্ট এর উপরে নির্ভর করে টাকা পেয়ে করবে। এভাবে আপনারা ইউটিউব থেকে স্পন্সরশীপ এর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

তো বন্ধুরা এই হল আমাদের ইউটিউব থেকে টাকা ইনকামের পাঁচটি উপায়। তো পোস্টটি যদি ভালো লাগে অবশ্যই বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন।

Share This

COMMENTS

Wordpress (1)
  • comment-avatar

    thank you.

  • Disqus ( )