বাংলা ব্লগ থেকে আয় করুন Google Adsense ছাড়া (৩০-৫০হাজার টাকা)

ব্লগ থেকে আয় করা বলতে আমরা সাধারণত গুগল এডসেন্স (Google adsense) দিয়ে আয় করাকেই বুঝে থাকি। কিন্তু আমরা অনেকেই জানি না যে ব্লগে আয় করার ক্ষেত্রে শুরু গুগল এডসেন্সই(Google adsense) একমাত্র উপায় নয়।

গুগল এডসেন্সGoogle adsense) ছাড়া ও হাজার হাজার উপায় আছে যার মাধ্যমে আপনারা গুগল এডসেন্সের থেকে ও অনেক বেশি টাকা আয় করতে পারবেন।

তবে হ্যা সেগুলো প্রায় সবগুলো সুবিধাই সাধারণত ইংরেজি ভাষায় ব্লগের জন্য। কিন্তু আমরা যারা যারা বাংলা ব্লগ নিয়ে কাজ করি তাদের জন্য আসলেই খুব কম উপায় রয়েছে একটি বাংলা ব্লগ থেকে আয় করার জন্য।

তাই আমরা বেশির ভাগ বাংলা ব্লগারই আমাদের ব্লগ থেকে আয়ের একমাত্র উপায় হিসেবে গুগল এডসেন্স (Google adsense) বেছে নেই । তবে বাংলাদেশ থেকে বাংলা সাইটের জন্য গুগল এডসেন্স (Google adsense) থেকে খুব বেশি টাকা আয় করা যায় না কারণ বাংলাদেশের এডগুলো সিপিসি খুবই কম থাকে ।

যেখানে একটি ইংরেজি ব্লগ সাইটে প্রতি ১হাজার ভিজিটরের জন্য ১০-৫০ ডলার পর্যন্ত গুগল এডসেন্স (Google adsense) থেকে আয় করা যায় । (যদি সেই ভিজিটরগুলো , আমরিকা, ইংল্যান্ড, কানাডার মত দেশগুলো থেকে আসে)

সেখানে বাংলা ভাষায় একটি ব্লগ সাইটে প্রতি ১হাজার ভিজিটরের জন্য আমারা সাধারণত ১-১০ডলার পর্যন্ত পেয়ে থাকি বা আয় করে থাকি। (যদি ভিজিটরগুলো সব বাংলাদেশ ও ভারত থেকে আসে)

তাহলে বুজতেই পারছেন আমরা যারা যারা বাংলা ব্লগ নিয়ে কাজ করতেছি তারা কত কম টাকা একটি বাংলা ব্লগ থেকে আয় করে থাকি।

তবে আমরা যদি আমাদের বাংলা ব্লগ থেকে আয় করাটাকে শুধু মাত্র গুগল এডসেন্স (Google adsense) এর উপর নির্ভরশীল না রেখে আরো কিছু উপায়ে আয় করার চেষ্টা করি তাহলে দেখা যাবে প্রতি ১হাজার ভিজিটরের জন্য আমাদের বাংলা ব্লগ সাইটগুলো থেকে বেশ ভালো পরিমাণের একটা অর্থ ইনকাম করতে পারবো মাস শেষে।

তো আজকে আমি আপনাদের সাথে সেই বিষয়গুলো নিয়েই আলোচনা করবো যে গুগল এডসেন্স (Google adsense) ছাড়াও কি কি উপায়ে আপনারা আপনাদের বাংলা ব্লগ থেকে আয় করতে পারেন ।

গুগল এডসেন্স ছাড়া বাংলা ব্লগ থেকে আয় করার ৫টি উপায়

এফিলিয়েট মার্কেটিং (affiliate marketing)

ব্লগ থেকে আয় এফিলিয়েট মার্কেটিং

কি অবাক হলেন, অবাক হওয়ার কিছু নেই; বর্তমানে আপনি চাইলে বাংলা ব্লগেও এফিলিয়েট মার্কেটিং(affiliate marketing) করতে পারবেন । কারণ এখন আর এফিলিয়েট প্রোগ্রামে জয়েন করার জন্য আমাজন, আলিবাবা এই রকম বড় বড় ই-কমার্স সাইটের উপর নির্ভর করতে হবে না। বর্তমানে বাংলাদেশের ই-কমার্স ওয়েবসাইট গুলোও এফিলিয়েট প্রোগ্রাম সেবা দেওয়া শুরু করেছে। তেমনি একটি ই-কমার্স ওয়েবসাইট হলো BDshop.com । আপনারা হয়ত ইতিমধ্যে এই সাইটি সম্পর্কে জেনে থাকবেন। BDshop হলো বাংলাদেশের জনপ্রিয় একটি ই-কমার্স ওয়েবসাইট । তারা সাধারণত বিভিন্ন টেকনোলজি বিষয়ক পণ্য বিক্রি করে থাকে। তো আপনি যদি চান খুব সহজেই বিডিশপ থেকে এফিলিয়েট লিংক নিয়ে আপনার বাংলা ব্লগ সাইটের মাধ্যমে সেটা প্রোমট করেত পারেন এবং সেই লিংক থেকে যদি কেউ কোন পণ্য কিনে তাহলে আপনি সেই পণ্যের লভ্যাংশ থেকে একটা কমিশন পেয়ে যাবেন। প্রতি পণ্যের উপর সাধারণত ৩-৭% কমিশন দিয়ে থাকে বিডিশপডটকম।

তাহলে আপনার বাংলা ব্লগ সাইটে যদি প্রতিদিন ১হাজার ভিজিটর থাকে এবং আপনার সাইটের দেওয়া বিডিশপের এফিলিয়েট লিংক থেকে যদি এভারেজ ৩টি পণ্য বিক্রি হয় আমি ধরে নিলাম প্রতিটি পণ্যের দাম যদি ১০হাজার টাকা করে হয়। তাহলে ৩টি পণ্যের জন্য আপনি পাচ্ছেন; ১০হাজার টাকায় ৩% = ৩০০টাকা অতএব ৩টি পণ্যের জন্য পাচ্ছেন ৩০০*৩=৯০০টাকা অর্থাৎ প্রতিদিন আপনি ৯০০টাকার মত আয় করতে পারবেন এই বিডিশপ এফিলিয়েট(affiliate marketing) করার মাধ্যমে । যদি আপনার ব্লগ সাইটে ১হাজার এর আশেপাশে ভিজিটর থাকে তাহলে আপনার ব্লগ থেকে আয় এর বেশি ও হতে পারে আবার কম ও হতে পারে।

তার মানে প্রতিদিন ৯০০টাকা মানে মাস শেষে আপনি পাচ্ছেন ৯০০*৩০=২৭ হাজার টাকা।

যেটা কিন্তু গুগল এডসেন্স( Google adsense) এর চেয়ে কোন অংশে কম নয় বরং আমি বলবো আরো বেশি।

বিডিশপের এফিলিয়েট প্রোগ্রামে কিভাবে জয়েন করবেন এবং সেখান থেকে কিভাবে এফিলিয়েট লিংক কালেক্ট করবেন এই সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চাইলে নিচের ভিডিওটি দেখে নিন।

লোকাল স্পন্সার

আপনার যখন একটি বাংলা ব্লগ থাকবে । এবং সেখানে মুটামুটি পরিমাণ ভিজিটর থাকবে তখন কিন্তু আপনি নানান রকম লোকাল স্পন্সার পেতে পারেন । এর জন্য আপনাকে আপনার সাইটের কন্টাক্ট ফ্রমটা ভালোভাবে দিতে হবে। যাতে যে কেউ এরকম থাকলে আপনার সাথে খুব সহজেই কন্টাক্ট করতে পারে।

এছাড়াও আপনি চাইলে নিজেও আপনার আশে পাশে বিভিন্ন লোকাল কম্পানির কাছে স্পন্সারের জন্য আবেদন করতে পারেন। আপনার সাইটের এনালাইটিক্স এর রিপোর্ট দেখিয়ে আপনার ব্লগের পার্ফমেন্স যদি ভালো হয় তাহলে স্পন্সার পেতে খুব বেশি কষ্ট করতে হবে না। এভাবে ও আপনি চাইলে মাসে ১০-২০হাজার টাকা আপনার ব্লগ সাইট থেকে আয় করতে পারেন ।

নিজের বিজনেস বিল্ডিং

ব্লগ থেকে আয়

আপনার বাংলা ব্লগে যখন ভালো ভালো বেশ অনেক গুলো কন্টেন্ট দেওয়া হয়ে যাবে, তখন যদি আপনার সাইটে ভিজিটর ঢুকতে শুরু করে, তখন কিন্ত আপনি চাইলে আপনার নিজের উৎপাদিত বিভিন্ন পণ্য বিক্রি করতে পারেন আপনার ব্লগের মাধ্যমে ইনকাম করতে পারেন।

কারণ আপনার যখন একটি ব্লগ রয়েছে তার মানে আপনার কাছ বেশ কিছু মানুষ রয়েছে যারা আপনার হাতের নাগালে মানে আপনার ব্লগে প্রতিদিন প্রবেশ করে আপনার আটির্কেল পড়ার জন্য। তো আপনি চাইলে এই ভিজিটরদেরকে কাজে লাগিয়ে আপনার বিজনেস বিল্ড করতে পারেন। আপনার কন্টেন্ট এর পাশাপশি আপনি আপনার পণ্যের এড দিতে পারেন এবং সেখান থেকে আপনার পণ্য বিক্রি করে আয় করতে পারেন। এতে কিন্তু আপনার আর কোন কাস্টমার খুজে বের করতে হবে না । আপনার ব্লগের ভিজিটররাই হবে আপনার কাস্টমার। এভাবে ও আপনার ব্লগ থেকে আয় করতে পারবেন।

ই-মেইল মার্কেটিং করতে পারেন (CPA Marketing)

আপনি চাইলে আপনার বাংলা ব্লগে ই-মেইল মার্কেটিং (Email marketing) করতে পারেন। এর জন্য আপনার ব্লগে একটি ইমেইল ভেরিফিকেশন অবশন রাখতে হবে তখন আপনার ভিজিটররা যখন আপনার সাইটে প্রবেশ করবে তখন আপনার সেই ভেরিফিকেশন তাদের ই-মেইলটি ভেরিফিকেশন করবে এবং আপনি সেই ই-মেইলগুলো কালেক্ট করে বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করতে পারেন। আপনি আপনার বিভিন্ন সার্ভিস সেই মেইল গুলোতে পাঠিয়ে দিতে পারেন অথবা সেই ই-মেইল গুলো বিভিন্ন সার্ভিস প্রোভাইডার প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রি করে দিতে পারেন।

এভাবে আপনি চাইলে আপনার ব্লগ থেকে আয় করতে পারেন। এভাবেও খুব ভালো একটি অর্থ আয় করতে পারবেন আপনার ব্লগ থেকে। আপনি যদি প্রতি মাসে ১হাজার ইমেইল কালেক্ট করতে পারেন তাহেল প্রতিটি ই-মেইল ৫টাকা করে বিক্রি করলে ১০০০ ইমেইলের জন্য দাম হবে ১০০০*৫০= ৫০ হাজার টাকা।

তাহলে বুজতেই পারছেন এভাবে ও আপনি আয় করতে পারেন মুটামুটি বড় এমাউন্টের একটি টাকা।

ব্লগের মাধ্যমে নিজের স্কিল বিক্রি

আপনি যদি কোন কাজে দক্ষ হয়ে থাকেন তাহলে আপনি সেই দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে ইনকাম করতে পারেন ব্লগ থেকে। কারণ আপনার ব্লগে যখন পর্যাপ্ত ভিজিটর থাকবে তখন আপনার ভিজিটরা সবসময় চাইবে আপনার সম্পর্কে জানার জন্য তখন তারা আপনার ব্লগের about us পেজে ঢুকে আপনার সম্পর্কে যদি জানতে পারে যে আপনি এই এই কাজ গুলোতে দক্ষ তখন তাদের মধ্যে যে যে সেই কাজটি করানোর জন্য কাউকে খুজতেছিল তারা কিন্তু আপনার সাথে কন্টাক্ট করতে চাইবে ও আপনার কাছ থেকে সেই কাজটি করাতে চাইবে এভাবে ও আপনি খুব সহজেই আপনার স্কিল এর মধ্যমে তাদের কাজ গুলো করে দেওয়ার মাধ্যমে আপনার ব্লগ থেকে আয় করতে পারবেন এবং আপনার স্কিল বিক্রি করতে পারবেন এবং আয় করতে পারবেন হাজার হাজার টাকা আপনার ব্লগ থেকে।

সবশেষে

একটি ভালো জনপ্রিয় ব্লগ থেকে আয় করা যতটা সহজ ঠিক তেমনি একটি নতুন ব্লগকে জনপ্রিয় করাটাও ততটাই কঠিন।

তাই আপনারা নতুন অবস্থায় আয়ের কথা চিন্তা না করে ভালো ভিজিটররের দিকে চিন্তা করেন। কারণ মনে রাখবেন আপনার ব্লগে ভিজিটর থাকলে আয় হবেই ।

আর বিজিটর ব্লগে ভিজিটর আনতে হলে আপনাকে অবশ্যই শুরু থেকে ভালো ভালো কন্টেন্ট পাবলিশ করে যেতে হবে ।

এবং যখন আপনি নিয়মিত ভালো ভালো আটির্কেল পাবলিশ করে যেতে পারবেন আপনার ব্লগ সাইটি জনপ্রিয় হতে ‍খুব বেশি সময় লাগবে না।

আর যখন আপনার ব্লগ সাইটে পর্যাপ্ত ভিজিটর থাকবে তখন আপনার ব্লগ থেকে আয় করার বিভিন্ন উপায় বের হয়ে যাবে এবং মাস শেষে একটি বড় এমাউন্টের টাকা আয় করতে পারবেন খুব সহজেই।

আমাদের সকল আপডেট সবার আগে ফেসবুকে পেতে এখনি লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

এই আটির্কেলটি ভিডিও আকারে দেখতে চাইলে নিচের ভিডিওটি প্লে করুন।

Share This